নতুন প্রজন্মের আইডল মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রেজওয়ানা এলভিস

admin
  • আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ২৪ ২০২৩, ২০:৪১
  • 703 বার পঠিত
নতুন প্রজন্মের আইডল মিডিয়া ব্যক্তিত্ব রেজওয়ানা এলভিস

সুজন,নিউইয়র্ক:একটা বিশাল আকাশে জলজলে তারার মতো নিজের খ্যাতি ছড়িয়ে দেয়া মানুষটির নাম রেজওয়ানা এলভিস। সেই ছোট বেলা থেকে সংস্কৃতি অঙ্গনের সাথে জড়িত তিনি। লেখা পড়ার পাশাপাশি গান আবৃত্তির ও তামিল নিয়েছেন। বাংলাদেশের যশোর জেলায় তার জন্ম। নাচ গান দিয়ে সখের যাত্রা শুরু করে আজ সারা পৃথিবীতে সংবাদ পাঠের মাধ্যমে সমাদৃত। পরিবারে ছোট হওয়ার সুবাদে আদরে বড় হয়েছেন তিনি। দর্শনে ডিগ্রি নিলেও লেখা-লেখির আগ্রহ থেকেই সাংবাদিকতা পেশায় আসা তার। এ পর্যন্ত রেজওয়ানা এলভিসের লেখা আটটি বই প্রকাশ পায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য বই সংবাদ ও সাংবাদিকতা, বর্তমানের সাংবাদিকতা, সাংবাদিকতা সহ আরও কয়েকটি বই জনকপ্রিয়তা পায়। ২০০৯ সালে রেজওয়ানা বাংলাদেশের জনপ্রিয় চ্যানেল একুশে টেলিভিশনে রিপোর্টার হিসাবে যোগ দেন। রিপোর্টিংয়ের পাশাপাশি অনুষ্ঠান ও নিউজ প্রেজেন্টোশন শুরু করেন এলভিস । তার কাজের পারদর্শিকতায় মাত্র ছয় মাসের মধ্যে পদন্নোতি পেয়ে স্টাফ রিপোর্টার হিসাবে কাজ করেন। একুশে টেলিভিশনে স্পোর্টস রিপোর্টার হিসাবে কাজ করার সুবাদে তিনি ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেট, এস এ গেমস, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ক্রিকেট ম্যাচ কাভার করেছেন। একুশে টেলিভিশনে তার হাত ধরেই স্পোর্টস সন্ধ্যা নামে খেলোয়ারদের নিয়ে লাইভ টক শো শুরু হয়, যা বহুল জনপ্রিয়তা পায়। এরমধ্যে তিনি বিভন্ন এওয়ার্ড জিতে নেন। কাজের স্বীকৃতি হিসাবে এই সম্মাননা এমনই করে বলছিলেন তিনি। ২০১৩ সালে তিনি বাংলাদেশের আরো একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল বাংলাভিশন টেলিভিশনে যোগদান করেন । দীর্ঘ ১০ বছর সুনামের সাথে সিনিয়র নিউজ প্রেজেন্টার হিসাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের নিউজ প্রজেন্টারদের কাছে তিনি আইডল। তার এতো দুর আসার পেছনের কারন জানতে চায়লে জানান, সাধনা, চেষ্টা , লেখাপড়া, ধৈর্য সব কিছুর সংমিশ্রনে আজ এই অবস্থান। তিনি তার ঝুলিতে বিপিএ, টিপিএ, মিরর, কনট্যক্ট জি ফিল্ম, উই ক্যান সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে এ্যওয়ার্ড পেয়েছেন। দেশের বাইরে তিনি সম্মানীত হয়েছেন বহুবার। ২০২২ সালে ইতালি থেকে এবং ২০২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে আউটস্টান্ডিং পারফযমেন্সের জন্য এওয়ার্ড পান। ২০১৫ সালে ক্যান্সারের সাথে যুদ্ধ করে নতুন জীবন ফিড়ে পেয়েছেন, এরপর থেকে বিভিন্ন চ্যারিটি কাজে তার কিছুটা সময় ব্যয় করেন। বাংলাদেশের বেবি টিউব ও স্টুডিও জিড়োর উপদেষ্টা, এনবিএ এবং স্পোর্টস জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশানের জেনারেল মেম্বার, , লায়নস ক্লাব ইন্টার ন্যাশনালও হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটিতে সেক্রটারি হিসাবে দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। ভবিষ্যতে এতিমখানা ও বৃদ্ধাশ্রম করার ইচ্ছা আছে তার। সমাজে নির্জাতিত ও নিপিরিত মানুষদের পাশে থাকার জন্য প্রতিঙ্গাবদ্ধ তিনি। তিনি চান নিজেকে একজন সফল নারি হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করে অন্যদের কাছে নিজেকে দৃষ্টান্ত তৈরি করতে। তার লেখনি, সাংবাদিকতা, সংবাদ পাঠ ও সামাজিক কর্মকান্ডে লিপ্ততাকে বহু মানুষের আইডল হিসাবে নিয়েছেন।

0Shares
এই ক্যাটাগরীর আরো খবর