সিলেটের -বিয়ানীবাজারে ১০ নং মুড়িয়া ইউনিয়নে নৌকার কান্ডারী হতে চান হাজী-তারেক

  • আপডেট টাইম : মার্চ ১২ ২০২১, ১২:১৭
  • 72 বার পঠিত
সিলেটের -বিয়ানীবাজারে ১০ নং মুড়িয়া ইউনিয়নে নৌকার কান্ডারী হতে চান হাজী-তারেক

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি ঃ

সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন-কে সামনে রেখে, মাঠ পর্যায়ে ব্যাপক নির্বাচনী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। দীর্ঘ দিন থেকে ১০ নং মুড়িয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রত্যাশী ও নৌকা প্রতিকের কান্ডারী হাজী আব্দুল ওয়াহিদ তারেক, তিনি দলের তৃন্যমূল নেতা কর্মী ও এলাকার সর্বস্থরের লোকজনদের নিয়ে গনসংযোগ, উঠোন বৈঠক, মতবিনিময় সভা করে যাচ্ছেন।

দলের নেতাকর্মীরা জানান ঐতিহ্যবাহী ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়নের, সাংগঠনিক দক্ষতায় তরুণ এ যুব সংগঠক, দীর্ঘ সময় দলের দায়িত্ব পালন করে আসছেন সফলতার সহিত, রাজনীতিতে সক্রিয় থেকে এলাকায় আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগ কে সু- সংগঠিত করে তুলেছেন হাজী আব্দুল ওয়াহিদ তারেক।

-তিনি বিয়ানীবাজার উপজেলাদ্বীন ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা- তিনি ১৯৯৩ সন থেকে ১৯৯৮ সন পর্যন্ত ছাত্রলীগ এর রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন, ১৯৯৯ সন থেকে ২০১৫ সন পর্যন্ত ১০ নং মুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি পদে নিয়ােজিত ছিলেন এবং ২০১৫ সন থেকে অধ্যবদি ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলিগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক পদে নিয়ােজিত রয়েছেন ।

নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হাজীঃ আব্দুল ওয়াহিদ তারেক এর বাবা মৃত হাজী মাে: ফখর উদ্দিন কুকিল, তিনি ছিলেন ১০নং মুড়িয়া ইউ.পির, ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলিগ এর আমৃত্য সহ-সভাপতি।

তার ভাই আব্দুল অদুদ ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলিগ এর শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক।

এবং চাচা শফিক উদ্দিন আহমদ ১৯৭৫ সন থেকে ১৯৭৭ সন পর্যন্ত ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ এর স্বনামধন্য চেয়ারম্যান ছিলেন।

আরেক চাচা আব্দুল মান্নান (মাষ্টার) ১৯৯৮ সন থেকে ২০০৩ সন পর্যন্ত ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ এর চেয়ারম্যান ছিলেন।

নৌকা মনোনয়ন প্রত্যাশী হাজী আব্দুল ওয়াহিদ তারেক , ভোটারদের উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘গ্রাম হবে শহর’ এই ঘোষণায় জনপ্রতিনিধি হতে উদ্বুদ্ধ হয়েছি। তৃণমূলে আ.লীগের উন্নয়ন-রূপকল্প বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর সৈনিক হয়ে, মুজিব আদর্শে- জনগণের খাদিম হয়ে কাজ করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকবো।

আমার প্রতিটি শিরায় আওয়ামী লীগের রক্ত বহমান, সব সময় দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি নিরলসভাবে, অনেক সময় নির্যাতনের শিকার হয়েছি, রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর করে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়, তারপরেও এলাকায় দলকে সুসংগঠিত করার জন্য সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে গেছি, দলের নেতা-কর্মীদের প্রতি অনুরোধ ঐক্যবদ্ধ ভাবে সবাই মিলে।

নৌকা প্রতীকের একজন মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে আমার পাশে থাকবেন। আমার আস্থা বিশ্বাস আমার সাংগঠনিক দক্ষতা বিবেচনা করে, আমাকে নৌকা প্রতীক দিলে মানুষের ভালোবাসা দিয়ে দলের বিজয় ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হবো।
এবং আমার ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়নের সর্বস্তরে অসহায় ও দরিদ্র পরিবারগুলি এর পাশে, বিপদে-আপদে যথাসাধ্য সবধরনের সহযোগিতা করে যাচ্ছি। মহামারী কোভিড-১৯) তে যথাসাধ্য ঘরবন্দী পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি।
এলাকার উন্নয়ন দূর্ভোগ-সহ, বিভিন্ন সমস্যা এম-পি মহোদয় এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নিকট এলাকার বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরে সমাধানের চেষ্টা করেছি। এলাকায় কমিউনিটি ক্লিনিক, গরিব অসহায়, মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, সহ বিভিন্ন উদ্বোগ নিয়ে সকলের সহযোগিতায় সফলতার সহিত কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি নাগরিকদের মৌলিক অধিকার আদায়, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, কৃষি ও শিক্ষার উন্নয়ন, দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠন-সহ সুন্দর, স্বচ্ছ, বঞ্চনাহীন একটি আলোকিত সমাজ গঠনের মধ্য দিয়ে মুড়িয়াকে একটি মডেল ইউনিয়নে রূপান্তরিত করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

হাজী আব্দুল ওয়াহিদ তারেক বলেন, আমি ক্ষমতা কিংবা টাকা দিয়ে নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে নিতে পারবো না। টাকা দিয়ে ভোট কিনে জনগণের আমানত কলংকিত করতে চাই না, বরং ১০নং মুড়িয়া ইউনিয়ন বাসীর আস্থা ও ভালবাসা অর্জন করতে চাই।
আপনাদের ভালোবাসা ও দোয়া-ই আমার মূল লক্ষ্য, মানুষের সেবা করা আমার পারিবারিক ও নীতিগত শিক্ষা। তিনি আরো বলেন, ছোট বেলা থেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে আসছি। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাকে দলীয়ভাবে মনোনিত করা হবে বলে বিশ্বাস করি।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর