সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান হত্যাকারী প্রধান আসামি এস আই আকবর কে গ্রেফতারের দাবী জানিয়ে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালির প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

  • আপডেট টাইম : নভেম্বর ০২ ২০২০, ১৫:৪০
  • 66 বার পঠিত
সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান হত্যাকারী প্রধান আসামি এস আই আকবর কে গ্রেফতারের দাবী জানিয়ে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালির প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

ইউরোপ  প্রতিনিধিঃ ৩৬০ আওলিয়ার পূণ্যভুমি আধ্যাত্মিক রাজধানী খ্যাত সিলেটে  দশ হাজার টাকা ঘুষ এর জন্য পুলিশ রাতভর নির্যাতন করে রায়হান কে হত্যা করার ঘটনার প্রতিবাদে জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালি আয়োজনে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে সেই সঙ্গে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ও জানিয়েছেন  নেতৃবৃন্দ।

ইতালির রাজধানী রোমের স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্ট এর হল রুমে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় । বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে একেবারে নাজেহাল ইতালি এর মধ্যে ও শুধু মাত্র সামাজিক দায়িত্ববোধের দায়ে এবং স্বাস্থ্য বিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই প্রতিবাদ সভাটির সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি অলিউদ্দিন শামীম। পরিচালনা করেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম। এই সময় বক্তব্য রাখেন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শাব্বির আহমেদ, সহ সভাপতি এম ডি আব্দুল ওয়াদুদ, নির্বাচন কমিশনার মাসুক মিয়া,মোহাম্মদ রানা খান, আলি মিয়া, বৃহত্তর সিলেট যুব সংঘের সভাপতি আরমান উদ্দিন স্বপন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফ আহমেদ আরেফিন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জাকারিয়া, প্রচার সম্পাদক মিনহাজ হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদক নুরুল হোসাইন মুন্না সহ আরো অনেকে।

এসোসিয়েশনের সভাপতি অলি উদ্দিন শামীম বলেন”গত ১১ অক্টোবর সিলেটে রায়হান আহমেদ নামে একটি যুবককে মাত্র ১০ হাজার টাকার জন্যে রাতভর পিটিয়ে মেরে ফেলেছে সিলেট বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (বরখাস্ত) এস আই আকবর” হৃদয় বিচারক ও নৃশংস এই খবরে দেশে ও প্রবাসে সকলেই যেন বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। একই সঙ্গে এখন পর্যন্ত মূল আসামী ধরতে না পারায় যেন প্রচন্ড ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন” বাংলা দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্ত্রাস দমনে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন এবং তিনি তা বাস্তবায়নের লক্ষে কাজ ও করে যাচ্ছেন। অনেকেই রাজনীতির ছত্রছায়ায় থাকার পরেও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করনের কারণে বিচারের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে, গ্রেফতার করা হয়েছে অথচ রায়হান হত্যার মূল আসামি এখন পর্যন্ত ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। যা আগামী বাংলাদেশের জন্যে সুফল বয়ে আনবে না সেই সঙ্গে জনগনের হেফাজতের দায়িত্বে থাকা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উপর থেকে বিশ্বাস ও ভরসা চলে যাবে।” তিনি অতিদ্রুত আকবর কে গ্রেফতার করার দাবী জানান। এবং গ্রেফতার না হলে ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জালালাবাদ এস্যোসিয়েশন ও বৃহত্তর সিলেটবাসীর পক্ষ থেকে বিশাল আকারে প্রতিবাদ করা হবে বলেও উল্লেখ করেন।
একই প্রতিবাদ সভায় এই সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাব্বির আহমেদ বলেন” আমরা প্রবাসীরা দেশের কল্যাণে ও দেশের মানুষের সুখে অথবা দুখে সব সময়ই পাশে থাকি। রায়হানকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে এই হত্যাকারীকে বিচারের আওতায় না নিয়ে আসা পর্যন্ত আমরা প্রবাসীরা কিন্তু শান্ত থাকবো না। সেই সঙ্গে প্রধান আসামি আকবর কে ফেরারী ঘোষণা করার ও দাবী জানান। তিনি আরো বলেন এই জালালাবাদ এস্যোসিয়েশন সব সময়ই সিলেটের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজের অংশীদার যেমন ছিল তেমন ই ভাবে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ও সামাজিক অবক্ষয় গুলো কে দুর করার জন্যে ও কাজ করে যাবে”।

উল্লেখ্য জালালাবাদ এস্যোসিয়েশন ইতালী সিলেটে রাজন হত্যাকান্ডের সময় ও বিশেষ ভূমিকা নিয়ে ছিল আসামী গ্রেফতার বিষয়ে, একই সঙ্গে খাদিজার ঘটনায় তার পরিবারের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়ানো এবং সর্বশেষ সিলেটের এম সি কলেজে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনা ও রায়হান হত্যার প্রতিবাদে বিশ্বের সকল জালালাবাদ এসোসিয়েশন ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় নিজেদের অবস্থান, করণীয়, ও মতামত প্রকাশ করেছে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর