বড়লেখায় ৪ জনকে হত্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে চা-শ্রমিকের আত্মহত্যা

আব্দুল বাছিত খান,মৌলভীবাজারঃ

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় একই পরিবারের ৩ সদস্যসহ পাঁচ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতদের মধ্যে একটি শিশু রয়েছে বলে জানা গেছে। তাদের সবাইকে নির্মল নামের একজন চা শ্রমিক কুপিয়ে হত্যা করার পর সে নিজে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। রোববার (১৯ জানুয়ারি) ভোরে উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের পাল্লারতল চা-বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হত্যার শিকার চারজন হলেন নির্মলের স্ত্রী জলি (২৬) , শ্বাশুড়ি লক্ষ্মী (৪৩), প্রতিবেশী বসন্ত (৩৭) ও বসন্তের মেয়ে শিউলি (৬)। নিহতরা একই এলাকার বাসিন্দা ও চা শ্রমিক বলে জানা গেছে। নীয় সূত্রে জানা যায়, নির্মল নামে ওই ব্যক্তি মাদকাশক্ত। দীর্ঘদিন থেকে তাদের পারিবারিক কলহ চলছিল। শনিবার (১৮ জানুয়ারি) মাঝরাতে মদ্যপ অবস্থায় নির্মল বাসায় এসে ঝগড়া শুরু করে। এক পর্যায়ে দেশীয় ধারালো দা দিয়ে প্রথমে তাঁর স্ত্রী ও শ্বাশুড়িকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন। তাদের চিৎকার শুনে নির্মলকে ঠেকাতে প্রতিবেশী বসন্ত এগিয়ে আসলে তাকে ও তার কন্যা শিউলিকে কুপিয়ে জখম করেন। এক পর্যায়ে চারজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হলে নির্মল নিজের ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এসময় বসন্তের স্ত্রীও আহত হয়েছেন বলে জানা যায়। বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়াসিনুল হক বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে আমরা জানতে পেরেছি। মরদেহগুলো উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতারের মর্গের প্রেরণ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn